Home স্বাস্থ্য যে ৭ টি বাজে অভ্যাস সর্বনাশ করে দেয় আপনার ত্বকের

যে ৭ টি বাজে অভ্যাস সর্বনাশ করে দেয় আপনার ত্বকের

আমরা বিশেষ করে নারীরা প্রতিদিন এমন কিছু অভ্যাস গড়ে তুলেছি যেগুলো আমাদের ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা তৈরি করতে চলেছে। নারীদের ত্বক এমনিতেই অনেকটা কোমল। এ কারণে ত্বকের ব্যাপারে সবচেয়ে বেশি সচেতন হওয়া আমাদের প্রত্যেকেরই উচিৎ।

এমন কতগুলো নিত্যদিনের অভ্যাস জেনে নিন যেগুলো আপনার ত্বককে প্রতিনিয়ত করে তুলছে অসুন্দর, অমসৃণসহ নানা সমস্যা। বাড়াচ্ছে বলিরেখা আর সর্বনাশ করে দিচ্ছে আপনার চেহারার।

যে ৭ টি বাজে অভ্যাস সর্বনাশ করে দেয় আপনার ত্বকেরধূমপান খুব ধীরে হলেও ত্বকের মারাত্মক সমস্যা তৈরি করে। বর্তমানে অনেক নারীদের ধূমপান করতে দেখা যায়। মানসিক চাপ কমাতে বা সখের বশে তারা ধূমপান করে থাকেন। ধূমপানের ফলে শরীরের স্বাভাবিক রক্ত চলাচলে বাঁধা পায়।

এছাড়া হার্টের সমস্যাসহ বিভিন্ন ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনাও থাকে প্রচুর। কিন্তু কেউ হয়ত খেয়ালও করবেন যে এই ধূমপানের ফলে সূক্ষ্ম কিছু ত্বকের সমস্যা দেখা দিতে পারে। যেমন : ত্বকে কালচে ভাব তৈরি হওয়া। এটি মূলত নিকোটিনযুক্ত ধোঁয়া ত্বকে লাগার কারণে হয়ে থাকে। ফোঁসকা পড়া, ঠোঁটে কালো দাগ হওয়া ইত্যাদি। ধূমপানের ফলে ত্বকে বিভিন্ন ধরনের এ্যালার্জীও হতে পারে।

২. গরম জল দিয়ে গোসল :অনেকক্ষণ ধরে গোসল করতে সবারই বেশ ভালো লাগে। আর তা যদি হয় গরমের দিনে। কিন্তু শীতের দিনে আমরা ঠান্ডার হাত থেকে বাঁচার জন্য গরম জল দিয়ে গোসল করে থাকি। গরম জল মুখের ত্বকের জন্য অনেক ক্ষতিকর।মুখের ত্বক অনেক নরম থাকে। গরম জল তা ঝলসে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। গরমজল তাপে মুখের ত্বক লাল হয়ে যায়, অনেক সময় পুড়েও যায়। অনেকে গরম পানির বাথটাবে অনেকক্ষণ শরীর ভিজিয়ে রাখতে পছন্দ করেন। এতে করে শরীরের উজ্জ্বলতা পুড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

৩. অ্যালকোহল খাওয়া :শখের বশে বা নেশায় আসক্ত হয়ে অনেক নারীই অ্যালকোহল খেয়ে থাকেন। অ্যালকোহল খাওয়ার কারণে অনেক নারী ব্রেস্ট ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া নানান ক্যান্সারে প্রতিবছর মারা যাচ্ছে হাজার হাজার নারী।

এই অ্যালকোহল গ্রহণে অনেক নারীর ত্বকের সমস্যাও দেখা দেয়। এর ফলে ত্বকের স্বাভাবিক তেল শুষে ফেলে এবং ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে যায়। ত্বকের রক্ত চলাচলে বাঁধা সৃষ্টি করে। ফলে ত্বকের স্ব্ভাবিকতা নষ্ট হয়ে পড়ে।

৪. নোংরা মেকআপের ব্রাশ :নারীরা ঘরের বাহিরে গেলেই মেকআপ নিয়ে থাকেন। এজন্য বিভিন্ন ব্রাশ ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু খেয়াল করে দেখুন ব্যবহার করা বেশিরভাগ ব্রাশই অনেক অপরিষ্কার হয়ে থাকে। ফলে মুখের ত্বকে ফোঁসকা, ব্রণ, ফুঁসকুঁড়ি, মেছতাসহ বিভিন্ন দাগ হয়ে থাকে। এছাড়া এসব নোংরা ব্রাশ ব্যবহার করে এ্যালার্জীও হয়ে থাকে। নোংরা ব্রাশ ব্যবহারের অভ্যাসটি পারলে আজই বাদ দিয়ে দিন।

৫. পর্যাপ্ত ঘুম না হওয়া :একজন মানুষের দিনে ৮ ঘণ্টা সময় পর্যন্ত ঘুমানো প্রয়োজন। ঘুম পর্যাপ্ত পরিমাণে না হলে বিভিন্ন শারীরিক ও মানসিক সমস্যা হয়ে থাকে। চর্মরোগবিশেষজ্ঞদের মতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুম না হলে ত্বকে ব্রণ, এ্যালার্জীসহ বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দেয়।

৬. ব্রণ খোঁচানো :ত্বকে ধূলাবালি বা বিভিন্ন কারণে ব্রণ উঠবে এটা স্বাভাবিক। কয়েকদিন পরে এটি এমনিতেই ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু কারও কারও একটি বাজে অভ্যাস রয়েছে যে মুখে কিছু উঠলে তা নখ দিয়ে টিপে ভেতরের নির্যাস বের করে দেয়া। কিন্তু এতে করে ব্রণটি হয়ত গায়েব হয়ে যাবে, ব্রণের একটা কালচে দাগ ত্বকে পড়ে যাবে যা চাইলেও অপসারণ করতে পারবেন না। এ কারণে ব্রণ খুটানো অভ্যাসটি একেবারেই বাদ দিয়ে দিন।

৭. রাতভর চ্যাটিং :এটা বিশ্বাস হোক বা না হোক সারারাত চ্যাটিং করলে বা অযথা আইফোন বা ল্যাপটপের
সামনে বসে থাকলে ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা হতে পারে। আপনার আইফোন বা ল্যাপটপটি ব্যাকটেরিয়া মুক্ত নাও হতে পারে।

এ কারণে এটি থেকে মুখের ত্বকে ইনফেকশন হতে পারে। ব্রণ ওঠা এবং উজ্জ্বলতা হ্রাস পাওয়া এ ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। সম্প্রতি প্রকাশিত একটি গবেষণায় এই তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

ব্যারিস্টার মইনুল গ্রেফতার

চরিত্রহীনকাণ্ড নিয়ে সমালোচনা-মামলার মধ্যে সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার …