সৌদি-কানাডা বিরোধে সংকটে যুক্তরাষ্ট্র

সৌদি আরব ও কানাডার কূটনৈতিক বিরোধে বেকায়দায় পড়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দুটি দেশই যুক্তরাষ্ট্রের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ মিত্র ও অংশীদার।

কানাডা সৌদি আরবে মানবাধিকার কর্মীদের দমন পীড়ন ও গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা জানায়। একইসঙ্গে দেশটি অবিলম্বে আটক কর্মীদের মুক্তি দেয়ারও আহ্বান জানায়।

এর প্রতিক্রিয়ায় সৌদি আরব কানাডার রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কার ও কানাডা থেকে তার রাষ্ট্রদূতকেও প্রত্যাহার করে নেয়। এছাড়া মধ্যপ্রাচ্যের ধনী দেশটি কানাডার সঙ্গে সব ধরনের বাণিজ্যিক সম্পর্ক ছিন্ন করে।

সৌদি সরকার কানাডায় অধ্যয়নরত সৌদি ছাত্রছাত্রীদের বৃত্তি বাতিল করে অন্যান্য দেশের কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে তাদের ক্রেডিট ট্রান্সফারের ঘোষণা দেয়। সৌদি সরকার তাদের রাষ্ট্রীয় এয়ারলাইন্স সৌদিয়ার টরেন্টোগামী সকল ফ্লাইট বাতিল করে। খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।

মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের নারী মুখপাত্র হেদার নউর্ট বলেন, ‘উভয় পক্ষকেই এই সংকটের কূটনৈতিক সমাধান করতে হবে। আমরা এটা করতে পারব না। তাদের নিজেদেরই এটা করতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত যে কোন দেশের স্বাধীনতা ও স্বার্বভৌমত্ব এবং ব্যক্তি স্বাধীনতার প্রতি শ্রদ্ধাশীল। যুক্তরাষ্ট্রের এই নীতির পরিবর্তন হয়নি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

ঈদের জামাত নির্বিঘ্ন করতে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা

জাতীয় ঈদগাহে মুসল্লিরা যেন নির্বিঘ্নে ঈদুল আজহার নামাজ পড়তে পারেন, সেজন্য ঢাকা মহানগর পুলি…