Home অপরাধ ও দূর্ঘটনা বিয়ের তিন পর শ্বশুরবাড়ির পুকুরে নবববধূর মরদেহ

বিয়ের তিন পর শ্বশুরবাড়ির পুকুরে নবববধূর মরদেহ

ঢাকার দোহার উপজেলায় বিয়ের তিনদিনের মাথায় শ্বশুরবাড়ির পুকুর থেকে এক নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। উপজেলার উত্তর জয়পাড়ার মিয়াপাড়া এলাকার পুকুর থেকে সোমবার লাশটি উদ্ধার করা হয়। নিহত শিখা আক্তার (১৮) ওই এলাকার রুহুল আমীনের স্ত্রী। এ ঘটনায় চারজনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে রহুল পলাতক রয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। আটকরা হলেন- রুহুলের চাচা মো. খোকন (৫০), মা আসমা বেগম (৪৫), বোন ফারিয়া আক্তার (১৮) এবং ভাবি মোহনা আক্তার (২০)। দোহার থানার ওসি শেখ সিরাজুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়দের বরাতে ওসি সিরাজুল বলেন, দোহারঘাটা এলাকার কুয়েত প্রবাসী মো. সিরাজের মেয়ে শিখার সঙ্গে গত শুক্রবার রহুলের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। রবিবার রাত থেকে শিখার কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও তার কোনো হদিস মেলেনি। এক পর্যায়ে সোমবার সন্ধ্যায় শ্বশুরবাড়ির পুকুরে কচুরিপানার নিচে গলায় কলসিবাঁধা অবস্থায় শিখার লাশ তার বাবার বাড়ির লোকজন খুঁজে পায়।

পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায় বলে জানান ওসি। এদিকে লাশ পাওয়ার ঘটনায় শিখার আত্মীয়স্বজন ও স্থানীয়র রুহুল আমীনদের বাড়ি ভাঙচুর করেন। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এছাড়া শিখা হত্যার সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে থানার সামনে বিক্ষোভ করে শিখার গ্রামের লোকজন। ময়নাতদন্ত শেষে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন বলে জানান ওসি সিরাজুল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

ঈদের জামাত নির্বিঘ্ন করতে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা

জাতীয় ঈদগাহে মুসল্লিরা যেন নির্বিঘ্নে ঈদুল আজহার নামাজ পড়তে পারেন, সেজন্য ঢাকা মহানগর পুলি…